Success in Delhi, patient recovered by plasma treatment

সাফল্যের নজির দিল্লিতে , প্লাজমা চিকিৎসায় সুস্থ রোগী

ভাস্বতী দাশ, প্রতিনিধি – করোনাভাইরাস থেকে সুস্থ হওয়া রোগীর রক্তে জন্ম নেয় করোনাবিরোধী শক্তিশালী এক প্রতিরোধ ক্ষমতা| এ কারণেই একবার সম্পূর্ণভাবে সুস্থ হয়ে ওঠা করোনা আক্রান্ত ব্যক্তি দ্বিতীয়বার সাধারণত এ রোগে আক্রান্ত হন না|করোনায় আক্রান্ত ব্যক্তি সুস্থ হয়ে ওঠার পর তাঁর শরীরের প্লাজম বা রক্তরস নিয়ে গুরুতর অসুস্থ ব্যক্তির শরীরে তা প্রয়োগ করা হয় | একেই বলা হয় কনভালসেন্টস প্লাজমা থেরাপি| দেশে এই মুহূর্তে করোনা আক্রান্তএর সংখ্যা মোট ১৮,৬০১ জন ও মৃতের সংখ্যা ৫৯০ জন ,তবে এর মধ্যেই একটি সুখবর আশার আলো দেখাচ্ছে চিকিৎসকদের |

দিল্লির একটি বেসরকারি হাসপাতালে ৪৯ বছরের এক করোনা আক্রান্ত ব্যক্তির শারীরিক পরিস্থিতি ক্রমেই খারাপ হচ্ছিল | তাঁকে প্লাজমা থেরাপি দেন ডাক্তাররা | প্লাজমা থেরাপির পর থেকেই ওই ব্যক্তি ধীরে ধীরে সুস্থতার পথে | প্লাজমা থেরাপিতে এই সাফল্যের পরে ডাক্তাররাও বেশ উচ্ছ্বসিত |একজন পূর্ণবয়স্ক মানুষের রক্ত থেকে সর্বোচ্চ ৮০০ মিলিলিটার প্লাজমা নেওয়া যায়৷ করোনা রোগীর শরীরে অ্যান্টি বডি দেওয়ার জন্য ২০০ মিলিলিটার প্লাজমা দরকার |এই ব্যক্তির ক্ষেত্রে রক্ত সেই ব্যক্তির কাছ থেকে নেওয়া হয়েছিল, যিনি ৩ সপ্তাহ আহে সুস্থ হয়ে গিয়েছিলেন | ইতিমধ্যেই সংক্রমণ চিকিৎসায় কোনও প্রতিষেধকের খোঁজ না মেলার কারণেই প্লাজমায় বিশ্বাস রাখছেন চাইছেন চিকিৎসকদের একাংশ |