পাঠক্রম থেকে বাদ ধর্মনিরপেক্ষতা, যুক্তরাষ্ট্রীয় পরিকাঠামো! তুঙ্গে বিতর্ক

দেবলীনা পাত্র, প্রতিনিধি: কমানো হয়েছে পাঠক্রম। আর তা নিয়েই তুঙ্গে বিতর্ক। সিবিএসই-র সিলেবাসে ধরমনিরপেক্ষতা, যুক্তরাষ্ট্রীয় পরিকাঠামো, নাগরিকত্বর মতো বিষয়গুলিকে বাদ দেওয়া হয়েছে। বিরোধীরা এর পিছনে শিক্ষাক্ষেত্রে গৈরিকইকরণের অভিযোগ তুলেছে। অন্যদিকে বোর্ডের স্পষ্ট ব্যাখ্যা, ‘ শুধুমাত্র ২০২০-২০২১ এর শিক্ষাবর্ষের জন্যই এই বদল করা হয়েছে’।
যুক্তি- পাল্টা যুক্তি চলছেই। কিন্তু বিতর্ক থামার কোন লক্ষণ মিলছেনা। ‘সিলেবাস ছাটাই’ নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন, ‘ করোনা আবহে সিবিএসই পাঠক্রম কমানোর জন্য নাগরিকত্ব,ধর্মনিরপেক্ষতা,যুক্তরাষ্ট্রীয় পরিকাঠামোর মতো বিষয় বাদ দিয়েছে জেনে আমি স্তম্ভিত। আমরা এর তীব্র বিরোধিতা করছি। কোনও মুল্যেই এই গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলি বাদ না দেওয়ার আর্জি জানাচ্ছি।“ যদিও সিবিএসই তাদের বিবৃতিতে জানিয়েছে, ‘’ করোনা পরিস্থিতিতে পাঠক্রমের বোঝা কমাতেই নবম থেকে দশম শ্রেণীর সিলেবাসে ৩০ শতাংশ অর্থাৎ প্রায় ১৯০ টি বিষয়ে বদল আনা হয়েছে এবং শুধুমাত্র ২০২০-২০২১ এর শিক্ষাবর্ষের জন্যই এই বদল করা হয়েছে।‘’ কংগ্রেস নেতা রণদীপ কুমার সুরজেওয়ালার কটাক্ষ, “ নাগরিকত্ব,ধর্মনিরপেক্ষতা,যুক্তরাষ্ট্রীয় পরিকাঠামোর মতো বিষয় বাদ দিয়ে কি শুধুমাত্র নোটবাতিল সম্পর্কে পড়ান হবে?” প্রসঙ্গত, দ্বাদশ শ্রেণীর বিজনেস স্টাডিস থেকে নোটবন্দির কথাও বাদ দেওয়া হয়েছে। একাদশ শ্রেণীর পাঠক্রম থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে পণ্য- পরিষেবা কর বা জিএসটি!
গোটা ঘটনায় সোশ্যাল মিডিয়ায় রীতিমত কটাক্ষের মুখে পড়ছে শাসক দল। ছাড় পাচ্ছেনা সিবিএসই-ও। এবার ড্যামেজ কন্ট্রোলে ময়দানে নেমেছেন কেন্দ্রীয় মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রী রমেশ পোখরিয়াল। বৃহস্পতিবার একটি টুইটবার্তায় তিনি বলেন, ‘ কিছু না জেনেই অনেকে সিবিএসই-র সিলেবাসে কয়েকটি বিষয় বাদ দেওয়া নিয়ে অনেক মন্তব্য করছেন।সমস্যা হল মিথ্যা ছবি তুলে ধরার জন্যই কয়েকটি বিষয় বেছে নিয়ে রঙ চড়ানো হচ্ছে।‘ পোখরিয়াল আরও দাবী করেন যে, বিশেষজ্ঞ এবং শিক্ষাবিদদের সুপারিশ এবং পরামর্শ মেনেই সিলেবাসে পরিবর্তন আনা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *